Uncategorized

গোপালগঞ্জ জেলার সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২২ ডাউনলোড

গোপালগঞ্জ জেলার ক্যালেন্ডার, সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২২ আপনি চাহিলে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন, আমাদের ওয়েবসাইট থেকে।সারা বছর মসজিদগুলো ফাঁকা থাকলেও পবিত্র রমজান মাসে মুসুল্লিতে কানায় কানায় পরিপূর্ণ হয়ে যায়। মুমিন-মুসলমানরাও ইবাদতের জন্য পাগলপারা হয়ে যায়। এর কারণ হলো পবিত্র মাহে রমজান হলো কোরআন নাজিলের মাস। রহমতের মাস।

বেশি বেশি কোরআন তেলাওয়াত করা। কোরআন তেলাওয়াত এমন একটি আমল যা সব জিকিরের চেয়ে উত্তম জিকির। দেখুন সারা বছর যত কোরআন তেলাওয়াত হয় তার চেয়ে রমজান মাসে বেশি হয়। কোরআনকে বলা হয় কালামুল্লাহ। অর্থাৎ আল্লাহর কথা। আর যে ব্যক্তি আল্লাহর কথা বার বার তেলাওয়াত করবে তার প্রতি তো আল্লাহ তায়ালা অবশ্যই খুশি হবেন।

বেশি বেশি তাহাজ্জদ নামাজ পড়া। তাহাজ্জদ তো এমন আমল যা নির্জনে নীরবে করা হয়। আর নির্জনের ইবাদত কবুল হবার প্রমাণ রয়েছে। বেশি বেশি নফল নামাজ পড়। বেশি বেশি জিকির করা। বেশি বেশি তওবা করা।

দৃষ্টিকে হেফাজত করা। যেনো কোনো খারাপ কাজে দৃষ্টিপাত না হয়। বেগানা মহিলার প্রতি দৃষ্টি না পড়ে। এমনিভাবে কোনো নাজায়েজ কাজের দিকেও যেনো দৃষ্টি না পড়ে। নবী কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, দৃষ্টি ইবলিসের তীরগুলোর মধ্যে একটি। যে ব্যক্তি আল্লাহ তায়ালার ভয়ে এটা হতে বেঁচে চলবে, আল্লাহ তায়ালা তাকে এমন ঈমানী নূর দান করবেন যার মিষ্টতা ও স্বাদ সে তার দিলের মধ্যে অনুভব করবে।

জবানকে হেফাজত করা। মিথ্যা, পরনিন্দকারী, বেহুদা কথাবার্তা, গীবত, অশ্লীল কথাবার্তা, ঝগড়া-বিবাদ ইত্যাদি সবকিছুই এগুলোর অন্তর্ভুক্ত। বুখারী শরীফে বলা হয়েছে, রোজা মানুষের জন্য ঢালস্বরূপ। তাই রোজাদারের উচিত তিনি যেনো তার জবান দ্বারা কোনো অশ্লীল বা মূর্খতার কথা-বার্তা, ঠাট্টা-বিদ্রূপ প্রভৃতি না করেন। যদি কেউ ঝগড়া করতে আসে, তবে তাকে বলে দেবেন যে তিনি রোজাদার।

গোপালগঞ্জ জেলার সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি

কানের হেফাজত করা। প্রত্যেক অপ্রিয় বিষয় যা মুখ বা জবান থেকে বের করা নাজায়েজ, তা শোনাও নাজায়েজ। নবী কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, গীবতকারী ও গীবত শ্রবণকারী উভয় গোনাহের অংশীদার হয়।

শরীরের অন্যান্য অঙ্গ-প্রত্যঙ্গকে হেফাজত করা। যেমন হাতকে নাজায়েজ বস্তু ধরা হতে, নাজায়েজ বস্তুর দিকে যাওয়া থেকে বিরত রাখা। ইফতারের সময় পেটকে সন্দেহযুক্ত খাবার থেকে বিরত রাখা। যে ব্যক্তি রোজা রেখে হারাম মাল দিয়ে ইফতার করে, তার অবস্থা ওই ব্যক্তির মতো যে কোনো রোগের জন্য ওষুধ ব্যবহার করে, কিন্তু তার সঙ্গে সামান্য বিষও মিশিয়ে নেয়। ফলে ওষুধ তার রোগের জন্য উপকারী হলেও পাশাপাশি বিষ তাকে ধ্বংস করে দেবে।

আসুন আমরা সবাই পবিত্র মাহে রমজান মাসে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করে চলার চেষ্টা করিএবং ফরজ, ওয়াজিব, সুন্নত, নফল, মুস্তাহাব আদায় করে আল্লাহ তায়ালাকে খুশি করি। নিজের গোনাহকে মাফ করাই। নিজের চরিত্রে পরিবর্তন আনি। তাহলেই সার্থক হবো আমরা। আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে রোজার পরিপূর্ণ হক আদায় করে রোজা রাখার তৌফিক দান করুন। আমিন।

Shahriar Hossain

This is the Shahriar Hossain from Charghat, Rajshahi. I have completed my MA from Rajshahi University in English Literature. Currently living a প্রাণোচ্ছল Life with friends & Family. Always Positive & Simple ❤️ Friendly, Helpful, Learning & Teaching Everyday 😎
Back to top button