কক্সবাজার জেলার ইফতারের সময়সূচি ২০২৩

ইসলামি ক্যালেন্ডারের ৯ম মাসে রমজান পালন করা হয়। এই মাস মুসলমানদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি মাস। রহমত, মাগফেরাত ও নাজাতের মাস।পবিত্র মাহে রমজানের প্রতিটি দিনের সূচনা হয় সেহরির মাধ্যমে। আর সমাপ্তি হয় ইফতারের মাধ্যমে। তাই আমাদের ওয়েবসাইটে কক্সবাজার জেলার সেহরী ও ইফতারের সময়সূচী দেওয়া আছে। আপনি চাহিলে ডাউনলোড করে সংরক্ষন করিতে বারবেন।

Click here to Download Ramadan Calendar

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

পবিত্র রমজান মাসের প্রস্তুতি যেভাবে নেবেন

বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম; পবিত্র রমজান মাস আসার আগেই রমজান মাসব্যাপী সিয়াম পালনের সংকল্প গ্রহণ করা অর্থাৎ নিয়াত করা একজন মুসলিমের জন্য একান্ত জরুরি। নিয়াত করার পর পরিকল্পনা করতে হবে যে কিভাবে আমি রমজান মাসকে অতিবাহিত করব। রমজান মাস একটি বিশেষ ফজিলত পূর্ণ মাস। রমজানের ফজিলতের বর্ণনা অল্প কথায় দেওয়া সম্ভব নয়।

পূর্বে আমরা রমজানের ফজিলত সম্পর্কে আলোচনা করেছি। তাই এখানে সে সম্পর্কে আলোচনা করতে চায় না। আপনারা আমার পূর্বের আলোচনা দেখে আসতে পারেন সেখানে বিস্তারিতভাবে রমজানের ফজিলত সম্পর্কে আলোচনা করেছি। রমজানের ফজিলত হাসিল করার জন্য  কিভাবে রমজানকে অতিবাহত করতে হবে অর্থাৎ কি কি ইবাদত করতে হবে তা পরিকল্পনা করার পর রমজান মাসের আগেই কিছু প্রস্তুতি গ্রহণ করা প্রয়োজন।

Coxsbazar 1

বিশ্বনবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মাহে রমজানের মহাকল্যাণ হাসিলের জন্য অনেক আগে থেকেই মানসিক প্রস্তুতি গ্রহণ করতেন; তিনি শাবান, এমনকি রজব মাস থেকে মানসিক প্রস্তুতি গ্রহণ করতেন; আর এভাবে পূর্ব থেকে সংকল্প ও মানসিক প্রস্তুতি নেয়া থাকলেই কোনো কাজ সুন্দর, সুষ্ঠু ও পরিপাটি ভাবে পালন করা সম্ভব হয়।

মাহে রমজানের সময়কাল জানুন এবং দিন গুনুন।

একজন মুসলিম মহা মর্যাদাপূর্ণ মাহে রমজানের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করেন। তিনি দিন গুনতে থাকেন  কবে আসবে মাহে রমজান? কবে থেকে রোজা রাখব; মুসলিমদের কাছে মাহে রমজানের আগমন ঠিক এরকম, যেন: কারো আপনজন দূর বিদেশ থেকে প্লেনে করে বাড়ি ফিরছেন; এ দিকে বিমান বন্দরে এবং বাড়িতে তার স্বজনরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন কখন এসে পৌঁছুবে প্লেন?

কখন তিনি প্লেন থেকে নেমে আসবেন? কখন পৌছাবেন বাড়ি। মুসলিমদের কাছে মাহে রমজানের আগমনের অপেক্ষাটাও হয়ে থাকে এরকম ব্যাকুলতা নিয়ে। রমজান মাস আমাদের আপনজনের মতােই। সুতরাং ভালোভাবে জেনে রাখুন, আমরা যে ক্যালেন্ডার অনুসরণ করি সেই ক্যালেন্ডার অনুসারে কবে শুরু হতে যাচ্ছে রমজান মাস? অতঃপর দিন গণনা শুরু করুন।

রমযানে কোথায় অবস্থান করবেন তা আগেই স্থির করুন

রমজানে আপনি কোথায় অবস্থান করবেন? কর্মস্থলে? গ্রামের বাড়িতে নাকি সফর করবেন বাইরে? অবস্থানের স্থান বা এলাকা অনুযায়ী আপনার রমযানের কর্মসূচি প্রণয়ন করুন এবং সেভাবে মানসিক প্রস্তুতি নিন।

সিয়াম পালনে পরিবারের সদস্যদের মানসিকভাবে প্রস্তুত করুন

আপনার নিজের মানসিক প্রস্তুতির সাথে সাথে আপনার পরিবারের সদস্যদের, নিকটাত্মীয়দের এবং অধীনস্থদেরও মাহে রমযানকে স্বাগত জানানোর এবং পুরো মাস সিয়াম পালনের জন্য মানসিকভাবে সচেতন ও প্রস্তুত করতে থাকুন। এ উদ্দেশ্যে পারিবারিক বৈঠক করুন। পরামর্শ করুন। মাহে রমজান সঠিকভাবে পালনের পরিকল্পনা গ্রহণ করুন। পরিবারের সদস্যদের মধ্যে কিছু কিছু করে দায়িত্ব বন্টন করুন।