৯ম শ্রেণী এসাইনমেন্টএসাইনমেন্ট

নবম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান ২০২০

নবম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্টের নির্ভুল সমাধান

অ্যাসাইনমেন্ট নিয়ে দুশ্চিন্তা আর নয়। অ্যাসাইনমেন্ট নিয়ে ভীতিমূলক দুশ্চিন্তা থেকে সমাধান নিয়ে আমরা এসেছি তোমাদের মাঝে। প্রিয় শিক্ষার্থীরা, তোমাদের বিদ্যালয়ে অ্যাসাইনমেন্টগুলো শুরু হয়ে গেছে। প্রত্যেক সপ্তাহে তোমাদেরকে বিষয়ভিত্তিক অ্যাসাইনমেন্ট গুলো জমা দেয়া হচ্ছে। কিন্তু তোমরা অ্যাসাইনমেন্টের অজ্ঞতার কারণে তোমরা অ্যাসাইনমেন্ট গুলো সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করতে পারছ না।

তোমাদের এসাইনমেন্ট সুন্দরভাবে উপস্থাপন করার জন্য আমাদের দক্ষ লেখকগণ তাদের দক্ষতা দ্বারা সুন্দরভাবে এসাইনমেন্ট তৈরি করে দিচ্ছে। যাতে তোমরা সুন্দরভাবে খাতাগুলো শিক্ষকের কাছে উপস্থাপন করতে পারো। আমাদের ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করে নিয়ে পরীক্ষার খাতায় উপস্থাপন করতে পারো। নিচে নবম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান এর এসাইনমেন্ট সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে খাদ্য ও খাদ্য ব্যবস্থাপনা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। খাদ্য ও খাদ্য ব্যবস্থাপনার গুরুত্ব কেন প্রয়োজন তার জন্য আমাদেরকে জানতে হবে খাদ্যের কাজ কি। খদ্যের কাজ হলো। খাদ্য যেমন আমাদেরকে ক্ষুধা নিবারণ করে, তেমনি শরীর গঠনে সাহায্য করে। খাদ্য শক্তি যোগায়, খাদ্য বিভিন্ন ধরনের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সৃষ্টি করে। যার ফলে আমরা দৈনন্দিন জীবনে চলাফেরা করতে পারি।

খাদ্যের বিভিন্ন উপাদান রয়েছে। যেমন কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, স্নেহ,ভিটামিন, খনিজ লবণ, পানি। আমাদের জীবনে যদি খাদ্য গ্রহণ না করি তাহলে আমরা অসুস্থ হয়ে যায়। তাই আমাদের শারীরিক সুস্থতার জন্য আমাদেরকে পর্যাপ্ত পরিমাণে এবং নিয়মমতো খাদ্য গ্রহণ করতে হবে। যদি আমরা খাদ্য গ্রহণ না করি তাহলে খাদ্যের অভাব জনিত বিভিন্ন ধরনের রোগ আমাদের শরীরে দেখা দিবে এবং আমরা অসুস্থ হয়ে পড়বো।

খাদ্যের প্রয়োজনীয়তা সবচেয়ে বেশি আমাদের কিশোর বয়সে। অর্থাৎ কিশোর বয়সটা যখন আমাদের শরীরের বৃদ্ধি ঘটে। শারীরিকভাবে বৃদ্ধির সময় যদি তোমরা খাদ্য কম করে খাও তাহলে তোমাদের সে বৃদ্ধি ব্যাহত করবে এবং শারীরিক বৃদ্ধি স্বাভাবিক ভাবে হবে না। ফলে তোমরা হয়ে পড়বে অসুস্থ। স্বাস্থ্যবান হওয়ার জন্য অবশ্যই তোমাদের উচিত এখন নিয়মিত পর্যাপ্ত পরিমাণ খাদ্য গ্রহণ করা।

শুধু তোমাদের জন্যই নয়, আমাদের যারা বড় ভাই-বোন আছে তাদেরকেও খাদ্যগ্রহণ ঠিকমতো করতে হবে। একটি নিয়মতান্ত্রিক জীবনে না এলে আমরা খাদ্যের দিক থেকে বিভিন্ন সমস্যায় পরবো এবং আমাদের শরীরে বিভিন্ন ধরনের রোগ খুব সহজে বাসা বাঁধতে পারে। তাই নিয়মতান্ত্রিক জীবনের জন্য খাদ্যের গুরুত্ব অপরিসীম ।

খাদ্যের পাশাপাশি পরিমিত ব্যায়ামগুলো করতে হবে যা খুবই প্রয়োজন। যদি আমরা এগুলো এখন গ্রহণ করি বা না মেনে চলি তাহলে বয়সকালে আমাদের শরীরের ভেতরের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা যেমন ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ দেখা দেবে। তাই খাদ্যের গুরুত্ব বুঝতে হবে এবং সেই অনুযায়ী খাদ্য গ্রহণ করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button