Assignment

অষ্টম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান ২০২০

অষ্টম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্টের নির্ভুল সমাধান

প্রিয় শিক্ষার্থীরা তোমরা অ্যাসাইনমেন্ট নিয়ে অনেকেই চিন্তায় পড়ে গেছো যে অ্যাসাইনমেন্ট কিভাবে করব এবং কিভাবে করলে সর্বোচ্চ নাম্বারটা অর্জন করা যায়। তাই তোমাদের জন্য আমরা অ্যাসাইনমেন্ট মূলক একটি সমাধান নিয়ে এসেছি। আমাদের ওয়েবসাইট থেকে তোমরা বিনামূল্যে ডাউনলোড করে নিতে পারবে এবং সেগুলো খাতাতে উপস্থাপন করে তোমরা তোমাদের কাঙ্খিত নম্বর পেতে পারবে।

বর্তমান বিশ্বে করোনা ভাইরাসের কারণে প্রত্যেকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। এজন্য প্রত্যেক জায়গায় বিভিন্ন ধরনের অ্যাসাইনমেন্ট গ্রহণ করা হচ্ছে। এর জন্য তোমরা দুশ্চিন্তা না করে আমাদের ওয়েবসাইটে সহায়তা নিতে পারো। আমাদের ওয়েবসাইটে প্রতিনিয়ত আমরা বিভিন্ন ধরনের এসাইনমেন্ট প্রকাশ করে যাচ্ছি। তাই বিভিন্ন ধরনের এসাইনমেন্ট পেতে চোখ রাখুন আমাদের ওয়েবসাইট এ।

শিশুর বিকাশ ও ব্যক্তিগত নিরাপত্তার দিক থেকে আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে। যেহেতু আমরা একটা সময় শিশু ছিলাম তাই আমরা বুঝতে পারি যে একটা শিশুর চাহিদা এবং সে কি বোঝাতে চাচ্ছে। তাই শিশুর চাহিদার দিকে এবং তার মতামতের দিকে আমাদের মূল্যায়ন করতে হবে । কারণ আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যৎ।

এই শিশুকে মূল্যায়নের মাধ্যমে আমরা একটি নিশ্চিত সুন্দর প্রজন্ম পেতে পারি। একটু বড় হয়ে আমাদের বয়সন্ধিকাল হয়। বয়সন্ধিকালের শিশুর শারীরিক পরিবর্তন ঘটতে থাকে। ১৩ থেকে ১৯ বছর বয়সী এই পরিবর্তনগুলো ঘটতে থাকে বলেই একে বয়সন্ধিকাল বলা হয়। এ বিষয়ে জানার গুরুত্ব অনেক বেশি। কারণ প্রত্যেকটি মানুষের একটা সময় ছিল যখন সে এই সময়ের মধ্যে দিয়ে গেছে। এটা এমন একটা সময় যে পাশে থাকার মত একজন মানুষ থাকা লাগবে।

যদি শিশুরা সঠিক দিকনির্দেশনা পাই তাহলে তারা বিপথে চালিত হতে পারে না। তাই শিশুদের সুন্দর ভবিষ্যত নিশ্চিত জন্য স আমাদের সবাইকে জানতে হবে। হয়তো এটা অনেক সময় অনেক জায়গায় আলোচনা করা হয় না। কিন্তু প্রত্যেকটি বিদ্যালয়ের একটি আবশ্যিক পড়াশোনা হওয়া উচিত।

যাতে শিশুরা তা কাজে লাগাতে পারে এবং একটি সুন্দর ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে পারে। কারণ হলো হরমোনের পরিবর্তন বয়স বাড়ার সাথে সাথে শরীরের বিভিন্ন ধরনের হরমোন এর জন্য এই ধরনের পরিবর্তন হয়। এর জন্য বয়সন্ধিকালের লক্ষণগুলো দেখা দেয়।

এ সময় একজন ছেলে একজন বা মেয়ে পরিবেশের সাথে খাপ খাওয়াতে পারেনা। তাদের পরিবর্তনগুলো পরিবেশ কিভাবে নেবে তা নিয়ে তারা বড় চিন্তিত থাকে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি, মা -বাবা, ভাই বোনদের উচিত তাদেরকে বয়সন্ধিকাল সম্পর্কে সঠিক শিক্ষা দেওয়া।

শিশুর বিভিন্ন ধরনের রোগব্যাধি হয়ে থাকে। একটি স্বাভাবিক শিশুর যদি স্বাভাবিক রোগব্যাধি হয়, তার মধ্যে দেখা যায় যে, সে তার বয়সের তুলনায় তার ওজন কম, নির্দিষ্ট সময়ের আগেই জন্ম নেওয়া, মায়ের পুষ্টিকর খাবারের অভাবে শিশুর ভেতরে অপুষ্টির উপস্থিতি দেখা দেয়। তাই শিশু জন্মানোর সাথে সাথে মায়ের বুকের দুধ খেতে দেওয়া উচিত। এগুলো কারণে বিভিন্ন ধরনের রোগের সৃষ্টি হয়। শিশুদের ডায়রিয়া, জ্বর, সর্দি-কাশি বিভিন্ন ধরনের রোগ হয়। তাই শিশুদের মধ্যে এই সমস্যাগুলো সমাধান করা যেতে পারে। তাই পরবর্তী প্রজন্মের দিকে লক্ষ্য রেখে শিশুদের প্রতি আমাদের বিশেষ যত্নবান হতে হবে।

গার্হস্থ্য বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান

১। তােমার পরিবারের আয়ের সাথে সঙ্গতি রেখে তােমার ছােট বােন বা ভাইয়ের জন্ম দিনের অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা ও বাজেট প্রণয়ন কর।

২। তােমার পরিবারের জন্য একটি ফাস্ট এইড বক্স তৈরি কর।

৩। রােগীর কক্ষ পরিষ্কার পরিছন্ন রাখার প্রয়ােজনীয়তা ব্যাখ্যা কর।

৪। বয়:সন্ধিকালের পরিবর্তন সম্পর্কে জানা প্রয়ােজন কেন? এ সময় স্কুলের সাথে খাপখাওয়ানােয় তুমি কী কী করতে পারাে?

Back to top button
Close